জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ

জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ জানা একজন মুসলমানের জন্য ভীষণ প্রয়োজন। দুর্ভাগ্যজনক হলেও সত্য, আমাদের অনেকেরই জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদীসসমূহ জানা নেই। আজকের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ার মাধ্যমে আপনি জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ বিস্তারিত জানতে পারবেন।

জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম
আর্টিকেল সূচিঃ জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ

ভূমিকা 

জানাযার নামাজ মূলত মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া ও ইস্তেগফার। জানাযার নামাজ আদায় করা ফরজে কিফায়া। সমাজের কিছু সংখ্যক লোক এ দায়িত্ব পালন করলে অন্যেরাও দায় মুক্তি হবে। যদিও সমাজের সব লোকের দায়িত্ব হচ্ছে মৃত ব্যক্তির জানাযার নামাজে অংশগ্রহণ করা এবং মৃত ব্যক্তির আত্মীয়-স্বজনকে সান্ত্বনা দেওয়া ও পাশে থাকা।
প্রিয় পাঠক, আজকের এই আলোচনায় আমরা জানতে পারবো জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ এ সংক্রান্ত যাবতীয় বিষয়। আশা করি পুরো আর্টিকেলটি পড়ে আপনি অনেক উপকৃত হবেন।

জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ

নবী করিম (সাঃ) এরশাদ করেছেন, তোমরা যখন জানাযার নামাজ আদায় করবে তখন মৃত ব্যক্তির জন্য খালেছ অন্তরে দোয়া করবে। ( আবু দাউদ, মিশকাত হা/ ১৬৭৪)
  • ইমাম সাহেব মাইয়াতের বুক বরাবর দাঁড়াবেন।
  • ইমাম সাহেবের পিছনে মুসল্লিগণ কাতার সোজা করে দাঁড়াবেন।
  • এরপর মনে মনে জানাযার নামাজের দোয়া পড়বেন।
  • তাকবীরে তাহরিমা বা আল্লাহু আকবার বলে দুই হাত নাভি বরাবর বেঁধে ফেলবেন।
  • সুবহানাকাল্লাহুম্মা, ওয়া বিহামদিকা, ওয়া তাবারাকাঁসমুকা, ওয়া তা'য়লা জাদ্দুকা, ওয়া জাল্লা সানাউকা, ওয়া লা ইলাহা গাইরুকা। এই ছানা পড়বেন।
  • ছানা পড়া শেষ হলে, দ্বিতীয়বার তাকবীরে তাহরীম দিবেন, কিন্তু হাত উঠাবেন না হাত বাধা অবস্থায় থাকবে।
  • হাত বাধা অবস্থায় রেখে দরুদ পাঠ করবেন, আমরা নামাজে যে দরুদটা পাঠ করি সেই দরুদ পাঠ করবেন।
  • তৃতীয় তাকবীর দেওয়ার পর জানাজার নামাজের দোয়া পড়বেন, মনে রাখবেন এখানেও হাত উঠাবেন না।
  • চতুর্থ তাকবীর দেওয়ার পর সালাম ফিরবেন এবং হাত ছেড়ে দিবেন।
প্রিয় পাঠক, একজন মৃত পূর্ণ বয়স্ক পুরুষ মানুষের ক্ষেত্রে আমরা এইভাবে জানাজার নামাজ আদায় করব।

মহিলাদের জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম

সুপ্রিয় পাঠক, একজন মৃত মহিলা ব্যক্তির জানাযার নামাজ পড়ার ক্ষেত্রে সকল নিয়ম কানুন একই থাকবে। শুধুমাত্র নিয়ত করার সময় লেহা জাল মাইয়াতে হবে পুরুষের ক্ষেত্রে, আর মহিলাদের ক্ষেত্রে হবে লেহা জিহিল মাইয়েতে। বাকি সমস্ত নিয়মকানুন একই রকম হবে।

নাবালক ছেলের জানাযার দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম

মৃত নাবালক ছেলের জানাজা পড়ার ক্ষেত্রেও আমরা একই নিয়ম অনুসরণ করব। শুধুমাত্র তৃতীয় তাকবীর বলার পর জানাযার নামাজের যে দোয়াটি পড়তে হয় সেখানে আমরা নিচের এই দোয়াটি পাঠ করব "আল্লাহুম্মাজ আল হুলানা ফারতাও ওয়াজ আল হুলানা আজরাও ওয়া যুখরাও ওয়াজ আল হুলানা সাফিয়াও ওয়া মুশাফফায়ান"।

নাবালিকা মেয়ের জানাযার দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম

মৃত নাবালিকা মেয়ের জানাযা পড়ার ক্ষেত্রেও আমরা একই নিয়ম অনুসরণ করব। শুধুমাত্র তৃতীয় তাকবীর বলার পর জানাযা নামাজের যে দোয়াটি পড়তে হয় সেখানে আমরা নিচের এই দোয়াটি পাঠ করব "আল্লাহুম্মাজ আলহা লানা ফারতাও ওয়াজ আলহা লানা আজরাও ওয়া যুখরাও ওয়াজ আলহা লানা সাফিয়াও ওয়া মুশাফফায়ান"।

জানাযার নামাজের ইমামতির নিয়ম

যারা আরবিতে পড়াশোনা করেছেন বিশেষ করে হাফেজ বা আলেম তারা অবশ্যই জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাজের হাদিস সমূহ বিস্তারিত জানেন। কিন্তু আমাদের মধ্যে অনেকেই আছেন কিভাবে জানাযার নামাজের ইমামতি করতে হয় তা জানি না।
আপনি চাইলে আপনার পরিবার এবং নিকট আত্মীয়দের জানাযার নামাজ আপনি নিজেই পড়াতে পারেন এবং সেটা উত্তম। আসুন জানাযার নামাজের ইমামতির নিয়ম গুলো জেনে নেই।
  • মৃত ব্যক্তি পুরুষ হলে বুক বরাবর এবং মহিলা হলে মাঝ বরাবর দাঁড়াতে হবে।
  • যেহেতু, জানাজার নামাজের নিয়ত এবং নিয়ম কানুন অনেকেই জানেনা সে ক্ষেত্রে জানাযার নামাজের নিয়ত এবং নিয়মকানুন অবশ্যই সবার উদ্দেশ্যে বলে দিবেন।
  • এরপর মনে মনে নিজে জানাযার নামাজের নিয়ত করবেন।
  • এখন প্রথম তাকবীর দিয়ে হাত বেধে ছানা পড়বেন।
  • এরপর দ্বিতীয় তাকবীর দিয়ে দরুদ শরীফ পড়বেন।
  • তৃতীয় তাকবীর দিয়ে জানাযার নামাজের দোয়া পড়বেন। মনে রাখবেন মৃত ব্যক্তি পুরুষ/ মহিলা/ নাবালক বা নাবালিকা হলে দোয়ার ক্ষেত্রে পরিবর্তন আসবে এ সম্পর্কে উপরে বর্ণনা করা হয়েছে।
  • সর্বশেষে চতুর্থ তাকবীর দিয়ে সালাম ফিরিয়ে নামাজ শেষ করবেন।
প্রিয় পাঠক, উপরে বর্ণিত নিয়ম গুলো অনুসরণ করে আপনি সহজেই জানাযার নামাজ পড়াতে পারেন। তবে সে ক্ষেত্রে খুবই মনোযোগী হবেন এবং সতর্ক থাকবেন যেন ভুল না হয়।

জানাযার নামাজের নিয়ম হানাফি মাযহাব

  • ইমাম সাহেব মাইয়াতের বুক বরাবর দাঁড়াবেন আর যদি মৃত ব্যক্তি মহিলা হয় তাহলে মাঝ বরাবর দাঁড়াবেন।
  • ইমাম সাহেবের পিছনে মুসল্লিগণ কাতার সোজা করে দাঁড়াবেন।
  • এরপর মনে মনে জানাযার নামাজের নিয়াত পড়বেন।
  • তাকবীরে তাহরিমা বা আল্লাহু আকবার বলে দুই হাত নাভি বরাবর বেঁধে ফেলবেন।
  • সুবহানাকাল্লাহুম্মা, ওয়া বিহামদিকা, ওয়া তাবারাকাঁসমুকা, ওয়া তা'য়লা জাদ্দুকা, ওয়া জাল্লা সানাউকা, ওয়া লা ইলাহা গাইরুকা। এই ছানা পড়বেন।
  • ছানা পড়া শেষ হলে, দ্বিতীয়বার তাকবীরে তাহরীম দিবেন, কিন্তু হাত উঠাবেন না হাত বাধা অবস্থায় থাকবে।
  • হাত বাধা অবস্থায় রেখে দরুদ পাঠ করবেন, আমরা নামাজে যে দরুদটা পাঠ করি সেই দরুদ পাঠ করবেন।
  • তৃতীয় তাকবীর দেওয়ার পর জানাযার নামাজের দোয়া পড়বেন, মনে রাখবেন এখানেও হাত উঠাবেন না।
  • চতুর্থ তাকবীর দেওয়ার পর সালাম ফিরবেন এবং হাত ছেড়ে দিবেন।
মূলত, হানাফী মাযহাবের অনুসারীরা এভাবেই জানাযার নামাজ পড়ে থাকেন।

জানাযার নামাজের নিয়ম আহলে হাদিস

  • ইমাম সাহেব মাইয়াতের বুক বরাবর দাঁড়াবেন আর যদি মৃত ব্যক্তি মহিলা হয় তাহলে মাঝ বরাবর দাঁড়াবেন।
  • ইমাম সাহেবের পিছনে মুসল্লিগণ কাতার সোজা করে দাঁড়াবে্ন।
  • এরপর মনে মনে জানাযার নামাজের নিয়াত পড়বেন।
  • তাকবীরে তাহরিমা বা আল্লাহু আকবার বলে দুই হাত বুকার উপর বেঁধে ফেলবেন।
  • সূরা ফাতিহা পাঠ করবেন এবং এর সাথে মিলিয়ে অন্য একটি সূরা পড়বেন।
  • দ্বিতীয় তাকবীর দিয়ে দরুদ শরীফ পড়বেন।
  • তৃতীয় তাকবীর দিয়ে জানাযার নামাজের দোয়া পড়বেন।
  • সর্বশেষ চতুর্থ তাকবীর দিয়ে জানাযা শেষ করবেন।

গায়েবানা জানাযা পড়ার নিয়ম

কোন মৃত ব্যক্তির অনুপস্থিতিতে যে জানাযার নামাজ পড়া হয় সেটাই মূলত গায়েবে জানাযা। গায়েবে না জানাযা ওই ব্যক্তির জন্যই প্রযোজ্য যে কিনা এমন জায়গায় মারা গেছেন যেখানে তার জানাযা পড়ার মতো কোনো মুসলিম ব্যক্তি ছিল না অথবা তাকে জানাযার নামাজ ছাড়াই দাফন করা হয়েছে। সেই মৃত ব্যক্তির জন্যই মূলত গায়েবেনা জানাযার নামাজ পড়া হয়।

হযরত আবু হুরায়রা (র:) হতে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ (সা:) বাদশা নাজাশির গায়েবেনা জানাযা পড়েছিলেন। কারণ তিনি ছিলেন মুসলমান কিন্তু তার জানাযা নামাজ পড়ার মতো কেউ ছিল না। কোন মৃত ব্যক্তির জানাযা হওয়ার পরেও তার আবার গায়েবানা জানাযা পরা জায়েজ আছে এমন কোন দলিল কোথাও পাওয়া যায়নি।
ইবনু আব্দিল বারর বলেন, যদি গায়বেনা জানাজা জায়েজ হতো তাহলে রাসূলুল্লাহ (সাঃ) নিশ্চয়ই নিজের সাহাবীদের গায়েবেনা জানাযা আদায় করতেন, যাদের জানাযায় তিনি শরিক হতে পারেননি। সুতরাং জানাযা হয়েছে এমন ব্যক্তির গায়েবেনা জানাযা পড়া জায়েজ নয়। (বিস্তারিত সালাতুর রসূল পৃষ্ঠা ১৫১ থেকে ১৫২)।
বর্তমান সময়ে যেভাবে লাশ নিয়ে বিভিন্ন স্থানে জানাযা পড়ানো হয় তার পক্ষেও কোন দলিল পাওয়া যায় না বরং প্রথম জানাজাই হল একজন মৃত ব্যক্তির মূল জানাযা। কেউ যদি মৃত ব্যক্তির জানাজায় অংশগ্রহণ করতে না পারে তাহলে কবরের পাশে গিয়ে জানাযা করবে। রাসূলুল্লাহ (সঃ) একমাস পরে তার এক সাহাবীর কবরে গিয়ে জানাজা পড়েছেন। ইবনে ওমর (রাঃ) তার ভাই আছেম এর জানাযা তিনদিন পরে এসে পড়েছেন (বায়হাক্কি ৪/৪৯ পৃষ্ঠা)।

জানাযার নামাজের দোয়া অর্থ সহ বাংলায়

পুরুষ এবং মহিলা উভয়ের ক্ষেত্রেই এই দোয়াটি পাঠ করব
"বিসমিল্লাহির রহমানির রহিম"

"আল্লাহুম্মামাগফির লি হাইয়্যনা ওয়া মাইয়্যতিনা ওয়া শাহিদিনা ওয়া গায়েবিনা ওয়া ছগিরিনা ওয়া কাবিরিনা ওয়া জাকারিনা ওয়া উংসানা, আল্লাহুম্মা মান আহ আইতাুহু মিন্না ফাতাওয়াফফাহু আলাল ঈমান। আল্লাহুম্মা লা তাহরিমনা আঝরাহু ওয়া লা তু দিল্লানা বাদাহু"।

অর্থঃ হে আল্লাহ, আমাদের জীবিত এবং মৃতদের, উপস্থিত এবং গায়েবদের, ছোট ও বড়দের এবং আমাদের নারী-পুরুষ সবাইকে ক্ষমা করুন। হে আল্লাহ, আপনি আমাদের মধ্যে থেকে যাকে জীবিত রাখবেন তাকে ইসলামের উপরে জীবিত রাখুন। যাকে মৃত্যুদান করবেন তাকে ঈমানের সঙ্গে মৃত্যু দিন। হে আল্লাহ, এর সওয়াব থেকে আমাদের বঞ্চিত করবেন না এবং এরপর আমাদেরকে পথভ্রষ্ট করবেন না। (আবু দাউদ ৩২০১, তিরমিজি ১০২৪)

মৃত বালেক অর্থাৎ, ছেলে শিশু হলে এই দোয়াটি পাঠ করব

"আল্লাহুম্মাজ আল হুলানা ফারতাও ওয়াজ আল হুলানা আজরাও ওয়া যুখরাও ওয়াজ আল হুলানা সাফিয়াও ওয়া মুশাফফায়ান"

অর্থঃ হে আল্লাহ, এই বাচ্চাকে আমাদের নাজাত ও আরামের জন্য আগে পাঠিয়ে দাও, তার জন্য যে দুঃখ তা আমাদের প্রতিদান ও সম্পদের কারণ বানিয়ে দাও, তাকে আমাদের জন্য সুপারিশকারী বানাও, যা তোমার দরবারে কবুল হয়।

মৃত বালিকা অর্থাৎ মেয়ে শিশু হলে এই দোয়াটি পাঠ করব

"আল্লাহুম্মাজ আলহা লানা ফারতাও ওয়াজ আলহা লানা আজরাও ওয়া যুখরাও ওয়াজ আলহা লানা সাফিয়াও ওয়া মুশাফফায়ান"

অর্থঃ হে আল্লাহ, এই বাচ্চাকে আমাদের নাজাত ও আরামের জন্য আগে পাঠিয়ে দাও, তার জন্য যে দুঃখ তা আমাদের প্রতিদান ও সম্পদের কারণ বানিয়ে দাও, তাকে আমাদের জন্য সুপারিশকারী বানাও, যা তোমার দরবারে কবুল হয়।

জানাযা নামাজ সম্পর্কে বেশ কিছু হাদিস

প্রিয় পাঠক, জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ এই আর্টিকেলে আমরা এখন জানাজার নামাজ সম্পর্কে বেশ কিছু হাদিস নিয়ে আলোচনা করব তাহলে চলুন শুরু করা যাক।
প্রিয় নবী (সঃ) বর্ণনা করেছেন, প্রত্যেক মুসলমানের উপর জানাযার নামাজ পড়া ওয়াজিব। চাই সে নেককার হোক বা বদকার, যদিও সে কবিরা গুনাহ করে থাকে। (আবু দাউদ)

হযরত ওসমান রাদিয়াল্লাহু তা'আলা থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, নবী করীম (সাঃ) যখন কোন মৃত ব্যক্তির দাফন কাজ শেষ করতেন, তখন তার কবরের পাশে দাঁড়িয়ে সাহাবীদের বলতেন, তোমরা তোমাদের ভাইয়ের কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করো এবং আল্লাহর কাছে দোয়া করো তিনি যেন তাকে ঈমানের উপর অবিচল রাখেন। এখনই তার কাছে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। (আবু দাউদ)

হযরত আবু হুরায়রা (রঃ) থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, নবী করীম (সঃ) বলেছেন, যে ব্যক্তি কোন মুসলমানের জানাযায় শরিক হয়ে নামাজ পড়ে এবং তাকে কবর দেয় সে দুই কেরাত নেকি পাবে। আর যে বাকি শুধু জানাযার নামাজ পড়ে কিন্তু মাটি দেয় না সে এক কিরাত নেকি পাবে। সাহাবায়ে কেরাম রাসূলুল্লাহ কে (সঃ) জিজ্ঞাসা করলেন দুই কেরাতের পরিমাণ কতটুকু? তিনি বললেন প্রত্যেক কিরাত ওহুদ পাহাড় সমান নেকি। (বুখারী, মুসলিম)

হযরত আয়েশা সিদ্দিকা (রঃ) থেকে বর্ণিত তিনি বলেন, প্রিয় রাসূল (সাঃ) বলেছেন, যে মৃত্যুর জানাযার নামাজ একটি বড় জামাতে পড়ে যারা সংখ্যায় ১০০ জনে পৌঁছেছে এবং সবাই তার ক্ষমার জন্য সুপারিশ করে, তাহলে এই মৃত্যুর জন্য তাদের সুপারিশ গ্রহণ করা হয়।

নবী করীম (সাঃ) বলেছেন, যারা আল্লাহর সঙ্গে কাউকে শরিক করেনি যদি কোন মুসলমানের জানাযায় এমন ৪০ জন লোক অংশ নিয়ে মৃত ব্যক্তির জন্য দোয়া করে, তাহলে আল্লাহ তায়ালা তাদের সুপারিশ নিশ্চয়ই কবুল করবেন।

প্রিয় পাঠক, আজকের এই আলোচনায় জানাযার নামাজের দোয়া পড়ার সঠিক নিয়ম ও জানাযার হাদিস সমূহ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। আশা করি পুরো আলোচনাটি পড়ার মাধ্যমে মৃত ব্যক্তির জানাযা সংক্রান্ত অনেক বিষয়ই জানা হলো। জীবনের প্রয়োজনে আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪