রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত

রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত হয়েছে। চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণের কক্ষপথ নিয়ে জটিলতা তৈরি হওয়ায় রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত হয়। বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে। রাশিয়ার লুনা ২৫ নামের মহাকাশযানটি ৪৭ বছর পর চাঁদে পাঠিয়েছিল। রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণের এটিই ছিল প্রথম মহাকাশযান এবং সেটি এই রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত।

পোস্ট সূচীঃ রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত

ভূমিকা

মহাকাশ অভিযানে যে সোভিয়েত রাশিয়ার বিশাল ভূমিকা ছিল এই অভিযানের মধ্য দিয়ে রাশিয়া যে পুরো ব্যর্থ তা পরিষ্কার হয়ে উঠেছে। যার ফল হিসাবে বিশ্ববাসী দেখল রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত।

রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত

এই অভিযানটিকে ঘিরে বিশেষজ্ঞরা মনে করেছেন রাশিয়া অনেক বড় ধরনের একটি বাজি ধরেছেন। রাশিয়া ১৯৭৬ সালের পর প্রথমবারের মতো এই মহাকাশযানটি পাঠিয়েছিলেন। মস্কো থেকে ৫,৫০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত ভস্তচনে কসমোড্রোন মহাকাশ কেন্দ্র থেকে স্থানীয় সময় রাত ২টা ১১ মিনিটে চাঁদের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। 
মহাকাশযানটির গত ২১ শে আগস্ট চাঁদে অবতরণের কথা ছিল। বিজ্ঞানীরা ধারণা করেছেন, এই চন্দ্রযানটি চাঁদের এমন একটি অংশে অভিযানের কথা ছিল, যেখানে জামাট বাধা পানি ও মূল্যবান বস্তু থাকতে পারে। যার জন্য মহাকাশযানটি চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণের কথা ছিল। কিন্তু লুনা ২৫ যানটি অবতরণের পূর্ববর্তী কক্ষপথে অগ্রসর হওয়ার পরে সমস্যা দেখা দেয়। 
রাশিয়ার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা রসকসমস শনিবার সকালে জানিয়েছেন, গ্রিনিচ মান সময় ১১ঃ৫৭ মিনিটে রুনা ২৫ চন্দ্রজানের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। গত সোমবার মহাকাশযানটির চন্দ্রপৃষ্ঠে অবতরণ করার পরিকল্পনা হয়েছিল। কিন্তু সব জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে প্রাথমিকভাবে তথ্য-প্রমাণে পাওয়া যায় চন্দ্রযানটি চাঁদের উপরিভাগের সাথে সংঘর্ষ হয়ে রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত হয়।

রাশিয়া মহাকাশে যে চন্দ্রযানটি পাঠিয়েছিলেন তার নাম কি?

২০২২ সালে সংঘটিত ইউক্রেন এবং রাশিয়ার চলমান যুদ্ধের মধ্যে দিয়ে মহাকাশ অভিযান নিয়ে বিশ্বের অন্যান্য দেশের সাথে রাশিয়ার সহযোগিতার অবসান ঘটে। মহাকাশ কেন্দ্র নিয়ে গবেষণার ক্ষেত্রে রাশিয়ার একটি বড় ভূমিকা থাকলেও এই যুদ্ধের চাপে পড়ে কিছুটা হলেও এই গবেষণা থেকে সরিয়ে আসেন। রুশ সরকার তার সক্ষমতা প্রমাণ করার জন্য মূলত এই অভিযানে নামেন। 
ছোট একটি গাড়ির আকারের লুনা ২৫ নামের এই মহাকাশযানটি চন্দ্রযান অভিযানে পাঠিয়েছিলেন।

কত বছর পর রাশিয়া চন্দ্রযান লুনা ২৫ মহাকাশে পাঠিয়েছিলেন?

সোভিয়েত নেতা ব্রেজনেভের শাসনামল ১৯৭৬ সালের পর থেকে চাঁদে আর কোন অভিযান পাঠানোর চেষ্টা করেনি রুশ সরকার। দীর্ঘ ৪৭ বছর পর রুশ সরকার লুনা ২৫ নামে মহাকাশযানটি চাঁদে পাঠিয়েছিল। মহাকাশযানটি বিধ্বস্ত হওয়ার এই খবরটি দেশটির সরকারি টেলিভিশনে প্রচার করা হয়। সেখানে মাত্র ২৬ সেকেন্ড সময় খবরটি দেখানো হয়।

চাঁদের কোন মেরুতে এটি অবতরণের কথা ছিল?

রাশিয়ার মহাকাশ গবেষণা কর্মকর্তারা জানিয়েছিলেন, গত ২১ শে আগস্ট চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে লুনা ২৫ নামের এই মহাকাশযানটি অবতরণের কথা ছিল। কিন্তু গত শনিবার ১৯ শে আগস্ট চাঁদে অবতরণের আগেই একটি সুনির্দিষ্ট কক্ষপথে পাঠানোর পর এই যন্ত্রটিতে কারিগরি ত্রুটি দেখা দেয় এবং সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় এবং এর একপর্যায়ে চাঁদে আছড়ে পড়ে এর অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যায়।

এই চন্দ্রযানটির ওজন কত কেজি ছিল?

লুনা ২৫ চন্দ্রযান্টি বিধ্বস্ত হওয়ার ঘটনা রাশিয়ার মহাকাশ গবেষণা (রসকসমস) এর জন্য একটি বড় ব্যর্থতা। বিগত বেশ কয়েক বছর যাবত এই প্রতিষ্ঠানটির অধঃপতন হচ্ছে বলে মনে করা হয়েছিল। কারণ রাশিয়ার বাজেটের একটি বড় অংশ ইউক্রেন যুদ্ধের জন্য সামরিক খাতে ব্যয় করা হচ্ছে। রসকসমস আগেই শিকার করেছিল যে, চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ অনেক ঝুঁকিপূর্ণ এবং এটি ব্যর্থ হতে পারে। 
গত ১১ ই আগস্ট ২০২৩ লুনা ২৫ নামে এই চন্দ্রযানটি চাঁদের উদ্দেশ্যে পাঠানো হয় এবং গত বুধবার সফলভাবে চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশ করে। লুনা ২৫ নামের এই চন্দ্রযানটির ওজন ছিল ৮০০ কেজি। যা চাঁদের উপরিভাগের সাথে সংঘর্ষ হয়ে সম্পূর্ণরূপে বিধ্বস্ত হয়ে যায়।

রাশিয়ার লুনা ২৫ কোন দেশের সাথে প্রতিযোগিতা করেছে?

রাশিয়ার রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ মূলত ভারতের মহাকাশযান "চন্দ্রযান ৩" এর সাথে প্রতিযোগিতা করছে। রাশিয়ার মহাকাশ অভিযান ব্যর্থ হলেও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ভারতের অভিযান এখনো সঠিক পথেই চলছে এবং এটি এ সপ্তাহেই চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে অবতরণ করবে বলে ভারতের কর্মকর্তারা আশা প্রকাশ করেছেন।
প্রিয় পাঠক, রাশিয়ার চন্দ্রযান লুনা ২৫ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে চাঁদেই বিধ্বস্ত হল এমন সময় যখন ইউক্রেনের সাথে যুদ্ধে জড়িয়ে দুই ট্রিলিয়ন ডলারের অর্থনৈতিক ক্ষতির মুখে পড়েছি দেশটি। সেই সাথে পশ্চিমা দেশগুলোর নিষেধাজ্ঞা তো আছেই। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, প্রথমত যুদ্ধের জন্য রাশিয়ার অর্থনীতির অবস্থা ভালো না সেই সাথে লুনা ২৫ চন্দ্র অভিযানের জন্য এযাবত দেশের কোষাগার থেকে খরচ হয়েছে প্রায় ২০ কোটি ডলার। 
আন্তর্জাতিক অর্থ বিশেষজ্ঞদের দেওয়া হিসাব অনুযায়ী ২ লাখ কোটি ডলারের অর্থনীতি রাশিয়ার। তাই কিছুটা হলেও চাপের মুখেই পড়তে হলো রুশ সরকারকে।

জীবনের প্রয়োজনে এরকম আরো অনেক গুরুত্বপূর্ণ খবর জানতে এবং পড়তে আমাদের সাথেই থাকুন। ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪