কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ

 

কোমরের ব্যথা এটি একটি কমন সমস্যা। আপনার যদি কোমরে ব্যথা হয়ে থাকে তাহলে কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ এই পোস্টটি আপনার জন্য। পুরো পোস্টটি জুড়েই থাকছে কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় কার্যকরী সমূহ। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক, কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ।
কোমরের ব্যথা কমানোর উপায়দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে থাকা অথবা একনাগারে অনেকক্ষণ বসে থাকা অথবা হাড় ক্ষয়ে যাওয়ার কারণেও কোমরে ব্যথা হতে পারে। তাই আজকের কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ এই গুরুত্বপূর্ণ আলোচনায় সঙ্গে থাকলে আশা করি অনেক উপকৃত হবেন।
পোস্ট সূচীঃ কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ
  • ভূমিকা
  • কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ সমূহ
  • কোমরের ব্যথা কমানোর উপায়
  • কোমর ব্যথা কমানোর কার্যকরী ব্যায়াম সমূহ
  • কোমরের ব্যথা কমানোর ঔষধ
  • কোমরের ব্যথা কমানোর মলম
  • কোমরের ব্যথা কমানোর খাবার সমূহ
  • গর্ভাবস্থায় কোমরের ব্যথা কমানোর উপায়
  • শেষ কথা

ভূমিকা

একজন মানুষের শরীরের যে কোন অংশের ব্যাথাটাই অনেক কষ্টের। আর সেই ব্যথাটা যদি হয় কোমরে তাহলে যন্ত্রণাটা আরো কয়েকগুণ বেড়ে যায়। কারণ বসতে, উঠতে, দাঁড়াতে এমন কি শুয়ে থাকতেও এই ব্যথার প্রকোপ অনুভব হয়। যারা বেশিক্ষণ সময় ধরে বসে কাজ করেন বিশেষ করে যারা কম্পিউটারে কাজ করেন তাদের মধ্যে এই ব্যথাটা বেশি হয়ে থাকে।
আবার যাদের বয়স ৪০ পার হয়ে গেছে তাদের মধ্যেও এই ব্যথার উপস্থিতি দেখা যায়। তবে সাধারণত ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা এই ব্যথায় আক্রান্ত বেশি হয়। আজকের এই আর্টিকেল জুড়ে থাকছে কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় বা কোমরের ব্যথা কমানোর পরামর্শ সমূহ।

কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ সমূহ

প্রথমেই আমাদের কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ সমূহ জানতে হবে। আর আপনি যদি কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ সমূহ জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার চেষ্টা করুন। আশা করি, পুরো পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ সমূহ জানতে পারবেন।
  • আপনার কোমরের হাড় গুলো যদি বয়সের কারণে বা বংশগত কারণে ক্ষয় হয়ে যায় তাহলে কোমরে ব্যথা হতে পারে।
  • মানুষের হাড়ের মধ্যে ফাঁকা জায়গা থাকে। যেটা পূরণ করা থাকে তালের শাঁস এর মত ডিক্স বা চাকতি দিয়ে। এই ডিস্ক বা চাকতি যদি বের হয়ে যায় তাহলে স্নায়ুতন্ত্রের উপরে চাপ পড়ে। ফলে কোমরে প্রচন্ড ব্যথা অনুভূত হয়।
  • যারা অফিসে বা বাসায় দীর্ঘক্ষন একই ভঙ্গিতে চেয়ারে বসে কাজ করেন তাদের কোমরে ব্যথা হতে পারে।
  • অনেক ভারী জিনিস সঠিক নিয়মের না তুললে মেরুদন্ড আঘাতপ্রাপ্ত হয়। ফলে সেখান থেকেও কোমর ব্যথা হতে পারে।
  • হাড়, মাংসপেশি, স্নায়ু এই তিনটি উপাদানের সামঞ্জস্য না হলে কোমর ব্যথা হতে পারে।
  • দুর্ঘটনার জনিত কারণে কোমরে আঘাতের ইতিহাস থাকলে পরবর্তীতে কোমর ব্যথা হতে পারে।
  • আপনি যে চেয়ারে বসে কাজ করছেন চেয়ারটি যদি ঠিকমতো বসানো না থাকে, ফলে আপনিও দীর্ঘক্ষণ এক দিকে কাত হয়ে বসে কাজ করছেন, সে কারণে কোমর ব্যথা হতে পারে।

কোমরের ব্যথা কমানোর উপায়

আপনি কি কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সম্পর্কে জানতে চান। তাহলে আপনি সঠিক জায়গাতে এসেছেন। কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় বিস্তারিত এখানে আলোচনা করা হবে। পুরো আর্টিকেলটি পড়লে আপনি অবশ্যই কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় জানতে পারবেন। তাহলে চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক কোমরের ব্যথা কমানোর উপায়।
  • সরিষার তেলে রসুন কুচি মিশিয়ে হালকা গরম করে কোমরে মালিশ করে নিন। এটি কোমরের ব্যথা দূর করার সবচেয়ে পুরাতন পদ্ধতি তবে বেশ কার্যকর।
  • একটি পরিষ্কার নরম ন্যাকড়া নিয়ে যেসব জায়গায় ব্যথা সেখানে দিনে দুবার হালকা গরম সেক দিন, অনেক উপকার পাবেন।
  • একটানা বসে কাজ করবেন না, মাঝে মাঝে একটু হাটাহাটি করে নেই। কোমর এবং পায়ের স্ট্রেসিং করুন।
  • শরীরে পটাশিয়ামের ঘাটতি থাকলে নার্ভের সমস্যা হয়। আর এই সমস্যার জন্য আপনার কোমরে ব্যথা হতে পারে। তাই প্রতিদিন নিয়ম করে আদা খেলে অনেক উপকার পাবেন।
  • যারা দীর্ঘক্ষন বসে কাজ করেন তারা অবশ্যই সোজা চেয়ার ব্যবহার করুন এবং কোমর সোজা করে বসার চেষ্টা করুন।
  • সঠিক মাপের জুতা ব্যবহার করুন। হিল জুতা পরিহার করুন, ব্যবহার করুন সেই সাথে নরম কুশনযুক্ত জুতা ব্যবহার করুন।
  • দুধের সঙ্গে হলুদ মিশিয়ে নিয়মিত খেলে কোমর ব্যথায় অনেক উপকার পাবেন।
  • ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার যেমন- দুধ, ডিম এবং প্রচুর পরিমাণে শাক সবজি খান। সেই সাথে নিয়মিত ব্রুকলি, গাজর, ছোলা আপনার কোমর ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে।
  • গুড়া দুধের সাথে মেথি বীজের মিশ্রণ তৈরি করে লাগালে কোমর ব্যথায় অনেক উপকার পাবেন।
  • প্রতিদিন একটি করে লেবু খান কারণ লেবুতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে, যা আপনার কোমরের ব্যথা কমানোর জন্য অনেক উপকারী।
  • আমরা জানি চুলের যত্নে এলোভেরার কোন বিকল্প নেই। আপনি যদি এলোভেরার শরবত নিয়ম করে খান তাহলেও আপনার কোমর ব্যথায় অনেক উপকার পাবেন।
কোমরের ব্যথা কমানোর বেশ কিছু কার্যকরী উপায় উপরে আলোচনা করা হলো। আশা করি, এই পরামর্শ গুলো মেনে চলার মাধ্যমে অবশ্যই আপনি কোমরের ব্যথা হতে মুক্তি পাবেন। এরপরেও যদি উপকার না পান অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন।

কোমর ব্যথা কমানোর কার্যকরী ব্যায়াম সমূহ

আপনি যদি কোমর ব্যথা কমানোর কার্যকারী ব্যায়াম সমূহের মাধ্যমে ব্যথা কমাতে চান তাহলে এই পর্বটি আপনার জন্য। এখানে আমরা কোমর ব্যথা কমানোর কার্যকরী ব্যায়ামসমূহ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক, কোমর ব্যথা কমানোর কার্যকরী ব্যায়াম সমূহ।
  • কাউ এক্সারসাইজ (ব্যায়ামের ছবি দেখতে এখানে ক্লিক করুন) বা ব্যামটি কোমরের ব্যথা কমানোর জন্য বেশ কার্যকর। হাঁটু গেড়ে বসে দুই হাত ফ্লোরের উপরে রেখে পেট এবং পিঠ ঝুলিয়ে দিতে হবে, এভাবে প্রতিদিন পাঁচ মিনিট করবেন।
  • মেঝেতে উপর হয়ে শুয়ে দুই হাতের কনুই এর উপরে ভর করে শরীরটাকে উপরের দিকে উঠাতে হবে। তবে পেট মাটিতে লেগে থাকবে। এভাবে ১০ থেকে ১৫ সেকেন্ড থাকুন। এভাবে পাঁচ থেকে ছয় বার করুন।
  • ব্রিজ পোজ (ব্যায়ামের ছবি দেখতে এখানে ক্লিক করুন) ব্যায়ামের জন্য প্রথমে, চিৎ হয়ে শুয়ে দুই পা গুটিয়ে নিয়ে আসুন, দুই হাত সমান ভাবে মেঝেতে রেখে দিন, এরপর কোমর যত দূর সম্ভব উচু করুন। এ অবস্থায় ৩০ সেকেন্ড থাকুন এবং প্রতিদিন ৫ থেকে ৬ বার করুন।
  • কোমরের ব্যথা কমানোর জন্য ওয়াল সিটস (ব্যায়ামের ছবি দেখতে এখানে ক্লিক করুন) খুব দারুণ একটি ব্যায়াম। ওয়াল বরাবর সোজা হয়ে দাঁড়াতে হবে, এরপর ওয়ালের সাথে পিঠ ঠেকিয়ে ধীরে ধীরে নিচের দিকে নেমে বসার মত ভঙ্গিতে ১০ সেকেন্ড থাকতে হবে। এভাবে প্রতিদিন পাঁচ থেকে ছয় বার করুন।
  • চিৎ হয়ে শুয়ে দুই হাত এবং দুই পা সোজা রাখুন। এরপর ডান পা যতটুকু সম্ভব উপরের দিকে তুলুন ১০ সেকেন্ড রাখার পর নামিয়ে ফেলুন। এবার বাম পা যতটুকু সম্ভব উপরে তুলুন এবং ১০ সেকেন্ড ধরে রাখার পর নামিয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতিদিন ১০ থেকে ১৫ বার করুন।
প্রতিদিন নিয়ম করে উপরের বর্ণিত ব্যায়ামগুলো করলে অবশ্যই ভালো ফলাফল পাবেন।

কোমরের ব্যথা কমানোর ঔষধ

আপনি কি কোমরের ব্যথা কমানোর ঔষধ সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন? তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ে আমাদের সাথে থাকুন। এখানে কোমরের ব্যথা কমানোর বিভিন্ন ঔষধ সম্পর্কে বর্ণনা করা হবে। পুরো পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে কোমরের ব্যথা কমানোর ঔষধ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।
কোমরের ব্যথা কমানোর সবচেয়ে কার্যকারী এবং নিরাপদ ঔষধের গ্রুপের নাম আইব্রু প্রফেন (Ibuprofen)। কোমরের ব্যথায় এই গ্রুপের ওষুধ দারুন ভাবে কাজ করে। আইব্রু প্রফেন এর পাশাপাশি ন্যাপ্রোক্সেন গ্রুপ ও কোমর ব্যথায় বেশ উপকারী। 
আইব্রু প্রফেন ও ন্যাপ্রোক্সেন গ্রুপের বেশ কিছু কোম্পানির ঔষধের নাম নিচে দেওয়া হল। আপনি চাইলে ন্যাপ্রক্সেন গ্রুপের ঔষধ খেতে পারেন। তবে মনে রাখবেন অবশ্যই এর সাথে গ্যাস্ট্রিকের ঔষধ খেতে হবে।

ঔষডধের নাম

গ্রুপের নাম

কোম্পানির নাম

মিঃগ্র;

Flamex

Ibuprofen

ACI Limited

250/500 gm

Serviprofen

Ibuprofen

Novartis

250/500 gm

Anaflex

Naproxen

ACI Limited

250/500 gm

Diproxen

Naproxen

Drug International Ltd

250/500 gm

Ecless

Naproxen

Incepta Pharmaceuticals Ltd

250/500 gm

Gloxen

Naproxen

Globe Pharmaceuticals Ltd

250/500 gm

Napec

Naproxen

UniMed UniHealth Pharmaceuticals Ltd

250/500 gm

Naprosyn

Naproxen

Radiant Pharmaceuticals Ltd

250/500 gm

Naxin

Naproxen

Opsonin Pharama Ltd

250/500 gm

Servinaprox

Naproxen

Novartis Bangladesh Ltd

250/500 gm

উপরে বর্ণিত ঔষধ গুলো অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ ক্রমে খাবেন। এই পোষ্টের মাধ্যমে শুধুমাত্র ঔষধ সম্পর্কে আপনাদের ধারণা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে।

কোমরের ব্যথা কমানোর মলম

আপনি যদি কোমরের ব্যথা কমানোর মলম সম্পর্কে জানতে চান, তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ুন। কোমরের ব্যথা কমানোর মলম আমরা এখানে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে চলুন শুরু করা যাক কোমরের ব্যথা কমানোর জন্য মলম কতটা কার্যকারী।
কোমরের ব্যথা কমানোর জন্য মলম বাবা একটি অতি প্রচলিত এবং পুরাতন চিকিৎসা পদ্ধতি। মলম বা বাম যারা ব্যবহার করেন তারা কি আসলেই কোন উপকার পান? যারা মলম বা বাম ব্যবহার করেন তাদের অনেকেরই ধারণা এটি মাংসপেশীর গভীরে প্রবেশ করে ব্যথা উপশম করে। 
তবে বিষয়টা অলৌকিক। মলম কখনো মাংসপেশীর গভীরে প্রবেশ করে ব্যথা উপশম্য করতে পারেনা। ক্যামফর, মেন্থল, মিথাইল সেলিসাইলেট এই উপাদান গুলো দিয়ে মলম তৈরি করা হয়। আর এগুলো ব্যবহারের ফলে ত্বকে ঠান্ডা বা গরম অনুভূত হয়। সেই সাথে এই উপাদানগুলো স্নায়ুতন্ত্রকে অন্যদিকে সরিয়ে নেয়। যার ফলে সাময়িকভাবে ব্যথা অনুভূত হয় না। 
এগুলো ব্যবহারের ফলে রোগীতো কোন লাভই হয় না বরং লাভ হয় কোম্পানির। অনেক সময় এই মলম ব্যবহারের ফলে ত্বকেরও অনেক ক্ষতি হয়ে যায়। তাই অবশ্যই মলম ব্যবহারের ক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন করুন। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কখনোই কোন মলম বা বাম ব্যবহার করবেন না।

কোমরের ব্যথা কমানোর খাবার সমূহ

শরীরের যেকোন স্থানে ব্যথার অনুভূত হলেই আমরা সরাসরি ওষুধের উপরে নির্ভরশীল হয়ে পড়ি। আপনি যদি কোমরের ব্যথা কমানোর খাবার সমূহ জানতে চান তাহলে পুরো পোস্টটি পড়ুন। কোমরের ব্যথা কমানোর খাবার সমূহ জানার মাধ্যমে আপনার ওষুধের উপর নির্ভরশীলতা অনেকটাই কমে যাবে। তাই চলুন কোমরের ব্যথা কমানোর খাবার সমূহ লিস্ট সম্পর্কে জেনে নেই।
  • রান্নার কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন মসলা যেমন-আদা, রসুন, দারচিনি, এলাচ, কাঁচামরিচ, কালোজিরা এগুলোতে আছে ইন্টিফ্লেমেন্টারি বৈশিষ্ট্য যা কোমর ব্যাথার ঔষধ হিসেবে কাজ করে।
  • মূল জাতীয় সবজি যেমন-আলু, মুলা, গাজর, বিট, শালগম এগুলোতে রয়েছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। যা ব্যথা কমাতে দারুনভাবে কাজ করে।
  • কোমরের ব্যথা কমাতে পেঁপে এবং চেরি ফল খেতে পারেন। এই ফল দুটি শরীরের ব্যথা এবং জ্বালা যন্ত্রণা দূর করতে বেশ কার্যকরী।
  • সকল রকমের সবুজ শাক সবজিতে রয়েছে বিভিন্ন রকমের পুষ্টি উপাদান। ভিটামিন এ থেকে শুরু করে সমস্ত রকমের ভিটামিনই এগুলোর মধ্যে পাওয়া যায়। যা মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধির পাশাপাশি বিভিন্ন ব্যথা উপশমে দারুণভাবে কাজ করে।
  • রান্নার কাজে তেল হিসাবে অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। এতে তেল শরীরের ব্যথা উপশম এ বেশ কার্যকরী।
  • হলুদে রয়েছে কারকিউমিন নামক এক ধরনের যৌগ পদার্থ। যা শরীরের জয়েন্টর ব্যথা নিরাময়ে বেশ ভালো কাজ করে।
প্রিয় পাঠক, উপরে বর্ণিত কোমরের ব্যথা কমানোর খাবার সমূহ নিয়মিত খাবার ফলে আপনি অবশ্যই কোমরের ব্যথা ব্যাথা থেকে মুক্তি পাবেন।

গর্ভাবস্থায় কোমরের ব্যথা কমানোর উপায়

গর্ভাবস্থায় কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় জানা প্রত্যেক মায়েদের জন্য খুবই জরুরী। গর্ভাবস্থায় শরীরের ওজন বাড়ে এবং ভারী হয় তাই কোমরের উপরে অনেক চাপ পড়ে। গর্ভাবস্থায় কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ পড়ার মাধ্যমে আপনি অবশ্যই এর কার্যকারী উপায় পেয়ে যাবেন। তাই মনোযোগ সহকারে গর্ভাবস্থায় কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় এই পোস্টটি পড়ুন।
  • নিয়মিত হাঁটা চলাফেরা করা। গর্ভাবস্থায় নিয়মিত হাঁটা চলাফেরা করুন দেখবেন কোমরের ব্যথা অনেকটাই লাঘব হয়ে যাবে।
  • নিচু হয়ে সামনের দিকে ঝুঁকে কোন কাজ করবেন না। সোজা দাঁড়িয়ে বা বসে কাজ করুন এবং কখনোই ভারি কিছু উঠানোর চেষ্টা করবেন না।
  • উঁচু জুতা পরিহার করে অবশ্যই মাঝারি উঁচু এবং নরম জুতা ব্যবহার করুন।
  • ঘুমের সময় দুই হাঁটুর মাঝখানে একটি নরম বালিশ রাখুন। ডান দিকে কাত হয়ে ঘুমান কখনোই চিৎ হয়ে ঘুমাবেন না।
  • চেয়ারে বসে কাজ করার সময় অবশ্যই বিট সোজা রাখুন। সম্ভব হলে পিঠের নিচে একটি নরম বালিশ ব্যবহার করুন।
  • কোমরে গরম বা ঠান্ডা শেক নিতে পারেন। শেক নেওয়ার বেলায় অবশ্যই সতর্কতা অবলম্বন করুন যেন কোনভাবেই পেটের উপরে সেক না চলে আসে।
আশা করি উপরের বর্ণিত নিয়ম গুলো অনুসরণ করলে অবশ্যই গর্ভাবস্থায় কোমর ব্যথায় অনেক উপকার পাবেন।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক,কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ এই পোষ্টের মাধ্যমে আমরা চেষ্টা করেছি কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ নিয়ে বিস্তারিত তুলে ধরার। আপনি যদি সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই কোমরে ব্যথা হওয়ার কারণ ও কোমরের ব্যথা কমানোর উপায় সমূহ এই পোস্টটি আপনার অনেক উপকারে আসবে বলে আমরা বিশ্বাস করি। এই পোস্টটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে অবশ্যই আপনার প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪