কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ

   

কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ এ বিষয়ে আপনি যদি জানতে চান তাহলে এই পোস্টটি আপনার জন্য। আজকাল অনেকেই গুগলে কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ বিষয়টি লিখে সার্চ দেন। তাই আজকের আর্টিকেলে আমরা আলোচনা করব কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ ক্রয়ের উপায় গুলো নিয়ে।

কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায়অনলাইনে ক্লাস, ফ্রিল্যান্সিং, ব্যক্তিগত এবং অফিশিয়াল বিভিন্ন প্রয়োজনে ল্যাপটপ একটি গুরুত্বপূর্ণ ডিভাইস। ঘরে বসেই এখন অনেকে অফিসিয়াল কাজ করে এজন্য প্রয়োজন একটি সুন্দর মানের ল্যাপটপ। অনেকেই আবার দেশের বাইরের অনেক প্রতিষ্ঠানের সাথে যুক্ত হয়ে ঘরে বসেই সার্ভিস প্রদান করে থাকেন। আর এজন্য প্রয়োজন একটি ভালো মানের ল্যাপটপ।

পোস্টসুচিঃ কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ
  • ভূমিকা
  • কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায়
  • শিক্ষার্থীদের জন্য কিস্তিতে ল্যাপটপ
  • কিস্তিতে ল্যাপটপ কোথায় পাওয়া যায়
  • Walton এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায়
  • Dell এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায়
  • ল্যাপটপ কেনার আগে যা জানা প্রয়োজন
  • শেষ কথা

ভূমিকা

একজন চাকরিজীবী, একজন ব্যবসায়ী, শিক্ষার্থী, ফ্রিল্যান্সার যার কথাই বলি না কেন প্রত্যেকেই তার কাজের সুবিধার জন্য প্রয়োজন একটি ল্যাপটপ বা একটি কম্পিউটারের। যেহেতু, ল্যাপটপ এক জায়গায় থেকে অন্য জায়গায় সহজেই নিয়ে যাওয়া যায় সে কারণে ল্যাপটপ এখন সবাই বেশি ব্যবহার করে। কিন্তু আর্থিক সংকটের কারণে সম্পূর্ণ টাকা একবারে খরচ করে অনেকের পক্ষে ল্যাপটপ কেন সম্ভব নয়, তাই আমাদের কিস্তির উপরে নির্ভরশীল হতে হয়।

কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায়

কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ এই টাইটেলে এখন আমরা আলোচনা করব কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় সম্পর্কে। যেহেতু আমাদের দেশে মধ্যবিত্ত বা নিম্ন মধ্যবিত্ত লোকের সংখ্যা বেশি তাই আমাদের প্রয়োজন বা সখ মেটানোর জন্য অনেকেই কিস্তির শরণাপন্ন হয়।
তবে কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার জন্য কোম্পানির শর্ত অনুযায়ী কিছু কাগজপত্র এবং ডাউন পেমেন্ট এর প্রয়োজন পড়ে। আসুন সেগুলো বিস্তারিত জেনে নেই।
কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার জন্য প্রয়োজনীয় কাগজপত্র
  • ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি
  • সম্প্রতি তোলা পাসপোর্ট সাইজের দুই কপি ছবি
  • দুইজন গ্যারান্টর বা জামিনদার
  • গ্যারান্টর বা জামিনদার এর এক কপি ছবি এবং এক কপি ভোটার আইডি কার্ড
  • উপরে উল্লেখিত কাগজপত্র এবং দুইজন গ্যারান্টার সহ শোরুমে আসতে হবে। সেই সাথে কিস্তি বা ইএমআইয়ে ল্যাপটপ নিতে চাইলে কোম্পানির কিছু শর্ত মানতে হবে। আসুন সেই শর্ত সমূহ জেনে নেই।
  • প্রতিমাসের ১ থেকে ১০ তারিখের মধ্যে কিস্তি পরিশোধ করতে হবে
  • আপনি যদি কিস্তি পরিশোধ করতে ব্যর্থ হন তাহলে গ্যারান্টর কে পরিশোধ করতে হবে
  • আপনাকে ৩০% পর্যন্ত ডাউনপেমেন্ট দেওয়া লাগতে পারে
  • ৩, ৬, ৯ এবং ১২ মাস পর্যন্ত সময় পাবেন কিস্তি বা ইএমআইয়ের মাধ্যমে টাকা পরিশোধের তবে সেক্ষেত্রে কিস্তির মেয়াদ যত দীর্ঘ হবে লোন এর পরিমাণও বেশি হবে।

শিক্ষার্থীদের জন্য কিস্তিতে ল্যাপটপ

আপনি কি একজন শিক্ষার্থী? আপনি কি কিস্তিতে একটি ল্যাপটপ কিনতে চান? কিভাবে কিনবো কেমন করে কিনব বুঝতে পারছেন না। তাহলে শিক্ষার্থীদের জন্য কিস্তিতে ল্যাপটপ এই পর্বটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
বর্তমানে বিভিন্ন কোম্পানি তাদের বিভিন্ন শোরুমের থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য কিস্তিতে ল্যাপটপ দিয়ে থাকেন। তবে শিক্ষার্থীদের জন্য কোন ক্রেডিট কার্ডের প্রয়োজন হয় না। কিছু কাগজপত্র এবং শর্ত পূরণ সাপেক্ষে তারা এই ল্যাপটপ প্রদান করে।
দেশের নামকরা কোম্পানি ওয়ালটন তাদের মধ্যে অন্যতম। এছাড়াও DELL, HP সহ আরো অনেক নামিদামি ব্রান্ডের ল্যাপটপ ও কিস্তিতে পাওয়া যায়।
কিস্তিতে ল্যাপটপ ক্রয়ের জন্য এ সকল কোম্পানির শোরুমে উপরে বর্ণিত কাগজপত্র সহ যোগাযোগ করুন।

কিস্তিতে ল্যাপটপ কোথায় পাওয়া যায়

আপনি যদি কিস্তিতে ল্যাপটপ কোথায় পাওয়া যায় জানতে চান তাহলে, সঠিক জায়গাতে এসেছেন। এখানে আমরা আলোচনা করব কিস্তিতে ল্যাপটপ কোথায় পাওয়া যায়। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক, কিস্তিতে ল্যাপটপ কোথায় পাওয়া যায়।
ডাউনপেমেন্ট এবং ক্রেডিট কার্ড ছাড়াই বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান শুধুমাত্র কিস্তিতেই ল্যাপটপ সরবরাহ করে থাকে।
  • বেস্ট ইলেকট্রনিক্সঃ বেস্ট ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশের একটি নামকরা শোরুম। এই শোরুম থেকে আপনি ডেল, এইসপি, স্যামসাং সহ নানা ব্রান্ডের ল্যাপটপ কিস্তিতে ক্রয় করতে পারবেন।
  • সিঙ্গারঃ সিঙ্গার বাংলাদেশের একটি নামকরা ব্র্যান্ড। বাংলাদেশের প্রায় সব জায়গাতেই সিঙ্গারের শোরুম আছে। আর সিঙ্গার প্রায় সকল পণ্যই কিস্তিতে দিয়ে থাকে। তাই আপনি খুব সহজেই আপনার পছন্দের ল্যাপটপটি সিঙ্গার এর শোরুম থেকে ক্রয় করতে পারেন।
  • ওয়ালটনঃ ইলেকট্রনিক্স সামগ্রী মধ্যে বাংলাদেশের সবচাইতে বড় প্রতিষ্ঠান ওয়ালটন। বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটা বাজারেই ওয়ালটনের শোরুম আছে। দেশীয় প্রতিষ্ঠান হওয়ায় খুব সহজেই ওয়ালটনের ইলেকট্রনিক সামগ্রীগুলো সাশ্রয়ী মূল্যে পাওয়া যায়। আর ওয়ালটনের রয়েছে নিজস্ব ব্র্যান্ড। তাই আপনি চাইলে খুব সহজেই ওয়ালটনের ল্যাপটপ নিয়ে নিতে পারবেন সহজ কিস্তিতে।
এছাড়াও বর্তমানে অনেক শোরুমে কিস্তিতে ল্যাপটপ কিনতে পাওয়া যায়। আশা করি কিস্তিতে ল্যাপটপ কোথায় পাওয়া যায় এ বিষয়ে আপনি পরিষ্কার একটা ধারণা পেয়েছেন।

Walton এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায়

আপনি যদি Walton এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায় সম্পর্কে জানতে চান তাহলে পুরো পোস্টটি পড়ে আমাদের সাথেই থাকুন। Walton এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায় সম্পর্কে এখানে বিস্তারিত আলোচনা করব। তাহলে চলুন জেনে নেয়া যাক Walton এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায় সম্পর্কে।
ইলেকট্রনিক্স সামগ্রীর মধ্যে দেশীয় সবচেয়ে বড় একটি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে ওয়ালটন। 
যা বাংলাদেশের প্রতিটা বাজারেই পাওয়া যায়। এর প্রত্যেকটা পণ্য আমরা নগদ মূল্যে অথবা বিভিন্ন মাসিক কিস্তিতে ক্রয় করতে পারি। Walton এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার কেনার জন্য আপনাকে কিছু শর্ত মানতে হবে এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দিতে হবে। যে সকল কাগজপত্র প্রয়োজন সেগুলো উপরে একাধিকবার বর্ণনা করা হয়েছে। 
প্রায় প্রতিটা শোরুম এর ক্ষেত্রেই একই রকমের কাগজের প্রয়োজন হয়। তাই উপরে বর্ণিত কাগজপত্র গুলো সাথে নিয়ে নিকটস্থ ওয়ালটনের শোরুমে যোগাযোগ করুন এবং সেখান থেকে আপনার পছন্দের ল্যাপটপটি কিস্তির মাধ্যমে ক্রয় করুন। তবে অবশ্যই কিস্তির বিষয়গুলো ভালোভাবে বুঝে নিবেন।

Dell এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায়

কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ এই পোষ্টের মাধ্যমে এখন আপনি জানতে পারবেন Dell এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায়। Dell এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায় সম্পর্কে জানতে পুরো পোস্টটি পড়ুন। আশা করি, পুরো পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে Dell এর ল্যাপটপ কিস্তিতে কেনার উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।
  • বেস্ট ইলেকট্রনিক্সঃ বেস্ট ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশের একটি নামকরা শোরুম। এই শোরুম থেকে আপনি ডেল, এইসপি, স্যামসাং সহ নানা ব্রান্ডের ল্যাপটপ কিস্তিতে ক্রয় করতে পারবেন। বাংলাদেশের প্রায় সকল জেলাতেই বেস্ট ইলেক্ট্রনিক্স এর শোরুম রয়েছে।
প্রিয় পাঠক, আপনাদের সুবিধার জন্য বেস্ট ইলেকট্রনিক্সের ওয়েবসাইট এড্রেস নিচে দেওয়া হল। এখানে প্রবেশ করে আপনি বেশ ইলেকট্রনিক্সের বিভিন্ন ল্যাপটপ সম্পর্কে জানতে পারবেন।

ল্যাপটপ কেনার আগে যা জানা প্রয়োজন

ল্যাপটপ কেনার আগে যা জানা প্রয়োজন এ বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আপনি যে ব্রান্ডের ল্যাপটপই ক্রয় করেন না কেন। ল্যাপটপ কেনার আগে কিছু বিষয় আপনাকে অবশ্যই জানতে হবে। আপনি কিস্তিতে কেনেন অথবা নগদে কেনেন সাধারণ কিছু বিষয় অবশ্যই ল্যাপটপ কেনার আগে জানা প্রয়োজন। আসুন ল্যাপটপ কেনার আগে যা জানা প্রয়োজন সেগুলো বিস্তারিত জেনে নেই।
  • প্রথমে যে জিনিসটা আপনাকে মাথায় রাখতে হবে সেটা হলো ব্র্যান্ড বা কোম্পানি। কোন কোম্পানির ল্যাপটপ বর্তমানে ভালো সার্ভিস দিচ্ছে সে সম্পর্কে আপনাকে আগেই জেনে নিতে হবে। তবে বাজারে প্রচলিত সকল ব্র্যান্ডের মধ্যে Asus, Dell, HP, Lenovo এখান থেকে যেকোনো একটি ব্র্যান্ডের ল্যাপটপ নিতে পারেন।
  • এরপর যে জিনিসটা খেয়াল রাখতে হবে সেটা হলো জেনারেশন। আপনি যত আপডেট জেনারেশন এর ল্যাপটপ কিনবেন আপনার ল্যাপটপ ততই ভালো হবে। যেমন- আপনি ইন্টেল প্রসেসর এর ১০ম জেনারেশনের ল্যাপটপ নিতে পারেন অথবা AMD এর চতুর্থ জেনারেশনের ল্যাপটপটিও নিতে পারেন.
  • প্রসেসর বা CPU কে বলা হয় কম্পিউটারের মস্তিষ্ক। প্রসেসর যত ভালো মানের হবে আপনার ল্যাপটপ তত ভালো সার্ভিস দিবে। Intel এবং AMD এর যে কোন একটি ব্যবহার করতে পারেন। তবে AMD হলে সবচেয়ে ভালো হয়।
  • র‍্যাম ল্যাপটপ এর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। র‍্যাম যত বেশি হবে ল্যাপটপের গতীযও তত বৃদ্ধি পাবে। তাই ১৬ জিবির DDR4 র‍্যাম ব্যবহার করুন।
  • হার্ডডিক্স আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। বিভিন্ন ফাইল সংরক্ষণের জন্য এটি ব্যবহৃত হয়। এটি অবশ্য নির্ভর করে আপনার কাজের ধরনের উপর। সাধারণত ১-২ ট্যারাবাইট হলেই যথেষ্ট। আপনি চাইলে M.2 লাগাতে পারেন।
উপরের বিষয়গুলো ছাড়াও ল্যাপটপ কেনার আগে ল্যাপটপ এর সাইজ বা আকার, ডিসপ্লে কোয়ালিটি, গ্রাফিক্স কার্ড, ব্যাটারি ও আরো অন্যান্য বিষয় গুলো ভালোভাবে জেনে ল্যাপটপ ক্রয় করবেন।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক, কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ এই পোষ্টের মাধ্যমে আমরা চেষ্টা করেছি কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ এ সম্পর্কে যাবতীয় তথ্য উপস্থাপনের। আশা করি, সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার মাধ্যমে কিস্তিতে ল্যাপটপ কেনার উপায় ও শিক্ষার্থীদের জন্য ল্যাপটপ এ বিষয়ে বিস্তারিত ধারণা পেয়েছেন। 
পোস্টটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই বন্ধুদের সাথে শেয়ার করবেন। পুরো পোস্টটি ধৈর্য ধরে পড়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪