হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব

প্রিয় পাঠক, হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই আলোচ্য সূচিতে আমরা আজকে হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করব। একজন মুসলমান হিসেবে এই বিষয়গুলো জানা আমাদের জন্য খুবই জরুরী। আপনি যদি হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই বিষয়ে জানতে চান তাহলে মনোযোগ সহকারে সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ুন। তাহলে চলুন সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ে হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেই।
হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব
হালাল উপার্জন ভক্ষণের মাধ্যমে পারিবারিক সম্পর্ক যে রকম অটুট থাকে, ঠিক তেমনি শারীরিকভাবেও সুস্থ থাকা যায়। তাই, হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই বিষয়টি সম্পর্কে আমাদের সকলের সঠিক ধারণা থাকতে হবে এবং সে অনুযায়ী মানার সর্বোচ্চ চেষ্টা করতে হবে।

ভূমিকা

আল্লাহ তায়ালা আমাদেরকে মুসলমান হিসেবে সৃষ্টি করেছেন। একজন মুসলমান তার জীবনকে ইসলামের নির্দেশিত পথ ব্যতীত অন্য কোন পথে পরিচালিত করতে পারে না। নিজেকে ইসলামের উপর পরিপূর্ণভাবে অটল অবিচল রাখতে হলে হালাল উপার্জনের বিকল্প নেই। কিন্তু হালালভাবে উপার্জন করে চলতে গেলে সমাজের সাথে তাল মিলিয়ে চলাটা অনেক কঠিন হয়ে যায়। এই কঠিন পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে আমরা অনেকেই হতাশার মধ্যে থাকি এবং হালাল পথ বাদ দিয়ে হারাম পথে পা বাড়াতে শুরু করি।

হালাল উপার্জনের উপায়

সামান্য কয়েকটি বিষয় মেনে চললেই হালাল উপার্জন করে নিজের জীবনকে পরিচালনা করা যেমন অত্যন্ত সহজ ঠিক তেমনি হালাল উপার্জনের উপায় গুলো জানা থাকলে সেটি বাস্তবায়ন করাও আমাদের অনেক সহজ হয়। আর সম্পূর্ণ পোষ্টটি পড়ে হালাল উপার্জনের উপায় গুলো জেনে নিন।
  • খোদাভীতি অর্জন
কোন মানুষের অন্তরে যদি আল্লাহর ভয় এবং কেয়ামতের ময়দানে জবাবদিহিতার ভয় থাকে তাহলে সে কখনো হারাম উপার্জনে লিপ্ত হতে পারে না। অর্থাৎ তার অন্তরের এই খোদা ভীতি তাকে হারাম উপার্জন থেকে বিরত রাখবে। তাই আমাদের উচিত সর্বপ্রথম নিজের মধ্যে খোদাভীতি অর্জন করা।
  • অল্পে তুষ্ট থাকা
মানুষ, চাই সে নারী হোক বা পুরুষ, যদি সে তার মধ্যে অল্পে তুষ্ট হওয়ার অভ্যাস গড়ে তুলতে পারে তাহলে তার জন্য হারাম উপার্জন থেকে বেঁচে থাকা অত্যন্ত সহজ হবে কেননা অল্পে তুষ্ট ব্যক্তির চাহিদা কম থাকে।
  • আল্লাহ প্রদত্ত রিজিকের উপর সন্তুষ্ট থাকা
রিজিক আল্লাহর পক্ষ থেকে বান্দার জন্য নির্ধারিত ,কাজেই বান্দা ততটুকুই পাবে যতটুকু আল্লাহ তাকে দিবেন এই বিশ্বাস অন্তরে লালন করতে পারলে হালাল উপার্জন সহজ হয়ে যাবে।
  • আল্লাহর উপর পরিপূর্ণ ভরসা রাখা
বিপদে-আপদে, সুখে দুখে সর্বদা আল্লাহর উপর ভরসা করা। উপার্জন কখনো বেশি হলে যেমন প্রাণ খুলে প্রভুর শুকরিয়া আদায় করা উচিত ঠিক তেমনি উপার্জন কম হলে হতাশ না হয়ে তখনও প্রভুর শুকরিয়া আদায় করা উচিত। কেননা যে আল্লাহ আপনাকে অন্য কোন প্রাণী হিসেবে সৃষ্টি না করে মানুষ হিসেবে সৃষ্টি করেছেন সেই আল্লাহই আপনার উত্তম রিজিকের দায়িত্ব নিয়েছেন। বিপদ আপদ এটা তো সামান্য পরীক্ষা মাত্র।
  • অর্থ উপার্জনের তথাকথিত প্রতিযোগিতায় লিপ্ত না হওয়া
আমাদের অনেককে এ ধরনের কথা বলতে শোনা যায় যে, আমার অমুক বন্ধুর মাসিক উপার্জন ৫০ হাজার টাকা, তাহলে আমার ইনকাম যদি তার চেয়ে বেশি নাও হয় ,অন্তত তার সমান তো হতেই হবে, না হলে তো আমার স্ট্যাটাসই ঠিক থাকবে না।
আবার অনেককে এ কথা বলতে দেখা যায় যে, আমার অমক ভাই তার স্ত্রী, সন্তানদের জন্য এত দামি দামি কাপড় ক্রয় করেছেন, সুতরাং আমাকেও তার মত/তার চেয়েও বেশি দামি কাপড় ক্রয় করতে হবে। অথচ আমাদের তো উচিত ছিল এটা ভেবে শুকরিয়া আদায় করা যে, কত মানুষ তো ভালো কাপড়ই পড়তে পারছে না সেখানে আমার আল্লাহ আমাকে তাদের চেয়ে কত উত্তম কাপড় পড়ার তৌফিক দিয়েছেন আলহামদুলিল্লাহ।
প্রিয় পাঠক! আমরা যদি আমাদের জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে উল্লেখিত বিষয়গুলো মেনে চলি তাহলে আশা করি আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাদের জন্য হালাল রিজিক উপার্জনের পথ অত্যন্ত সহজ করে দিবেন। আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে উল্লেখিত কথাগুলো মেনে চলার তৌফিক দান করুন।

হালাল উপার্জনের গুরুত্ব

হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই গুরুত্বপূর্ণ পোস্টে এতক্ষণ আমরা হালাল উপার্জনের উপায় গুলো সম্পর্কে জানলাম। এখন আমরা আলোচনা করব হালাল উপার্জনের গুরুত্ব নিয়ে। আপনি যদি হালাল উপার্জনের গুরুত্ব সম্পর্কে জানতে চান তাহলে সম্পূর্ণ পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
মানবজীবনে মৌলিক পাঁচটি অধিকার রয়েছে, সেগুলো হলঃ অন্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, ও চিকিৎসা। এগুলোর নির্বাহের জন্যই মূলত মানুষ সম্পদ উপার্জনের জন্য বের হয়ে থাকে। আর এই উপার্জন করতে গিয়েই কেউ বেছে নেয় বৈধ পন্থা আবার কেউ বেছে নেয় অবৈধ পন্থা। 
অথচ ইসলামী শরীয়তে বৈধ পন্থায় উপার্জনের বিকল্প নেই, এবং এর প্রতি যথেষ্ট গুরুত্বও দেয়া হয়েছে।
তাইতো কুরআনে কারীমের মধ্যে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন এরশাদ করেনঃ
  • يا ايها الذين امنوا لاتأكلوا اموالكم بينكم بالباطل
অর্থঃ হে ঈমানদারগণ! তোমরা তোমাদের একে অপরের সম্পদকে অন্যায় ভাবে ভোগ করো না।
ওপর এক হাদিসের মধ্যে রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ইরশাদ করেনঃ
  • عن رافع بن خديج قال قيل يارسول الله أي الكسب أطيب؟قال عمل الرجل بيده و كل بيع مبرور
হযরত রাফে ইবনে খাদিজ রাঃ থেকে বর্ণিত, তিনি বলেনঃ রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে জিজ্ঞাসা করা হলঃ হে আল্লাহর রাসূল! কোন উপার্জন সবচেয়ে উত্তম? তখন রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেনঃ ব্যক্তির এমন উপার্জন যা সে নিজ হাতে করে, এবং প্রত্যেক এমন ক্রয়-বিক্রয় যা সততার ভিত্তিতে হয়।
কুরআনে কারীমের অন্য এক আয়াতের মধ্যে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন এরশাদ করেনঃ
  • فإذا قضيت الصلاة فانتشروا في الأرض وابتغوا من فضل الله
অর্থঃ যখন তোমাদের নামাজ শেষ হলো তখন তোমরা জমিনের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ো এবং আল্লাহর অনুগ্রহ অন্বেষণ করো।
আর আল্লাহর অনুগ্রহ সব সময় হালাল উপার্জনের মধ্যেই রয়েছে। তাছাড়া আমরা যদি সকল নবী এবং রাসূলদের জীবনের দিকে তাকাই তাহলে আমরা দেখতে পাই যে, তারা কখনোই অবৈধ পন্থাকে নিজের উপার্জনের ক্ষেত্রে স্থান দেননি। 
যেমনঃ আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম নিজের জীবনের সূচনালগ্নে উপার্জনের জন্য কখনো বকরি চড়িয়েছেন আবার কখনো হযরত খাদিজা রাঃ এর ব্যবসায়িক ম্যানেজার হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছেন। তাই আমাদের উচিত উপার্জনের ক্ষেত্রে সর্বদা হালাল পন্থাকেই বেছে নেয়া। যদিও তাতে অনেক কষ্ট হোক না কেন।

হালাল উপার্জনের দোয়া

হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই আলোচ্য সূচিতে এখন আমরা জানবো হালাল উপার্জনের দোয়া সম্পর্কে। মুসলমান হিসেবে আমাদের যা কিছু প্রয়োজন সবকিছুই আমরা চাইবো মহান আল্লাহর কাছে। 
তাই হালাল উপার্জনের দোয়া জানাটা আমাদের জন্য খুবই জরুরী। দোয়া করার মাধ্যমে যখন আমরা আল্লাহর কাছে কোন কিছু চাইবো তখন খুব সহজেই তা কবুল হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই চলুন হালাল উপার্জনের দোয়াটি জেনে নেই।
  • اللهم اكفني بحلالك عن حرامك واغنني بفضلك عمن سواك
অর্থঃ হে আল্লাহ হারামের পরিবর্তে আপনার হালাল রিজিক আমার জন্য যথেষ্ট করুন, আর আপনি ছাড়া আমাকে অন্য কারো মুখাপেক্ষী করবেন না, এবং নিজ অনুগ্রহ দ্বারা আমাকে সচ্ছলতা দান করুন।

হালাল উপার্জনের উপকারিতা

হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই গুরুত্বপূর্ণ আর্টিকেলে এখন আমরা জানবো হালাল উপার্জনের উপকারিতা সম্বন্ধে। কষ্টে উপার্জিত হালাল রিজিক মানুষের সুস্বাস্থ্যের জন্য যেমন উপকারী তেমনই মানুষের চিন্তা চেতনার জন্যও উপকারী। আর চিন্তা চেতনা ও চারিত্রিক দিক থেকে যখন মানুষ নিজের উন্নতি করতে পারে তখন সে সমাজের মধ্যে একজন প্রশংসিত ব্যক্তিকে পরিণত হয়। 
তাই সম্পূর্ণ পোস্টটির মনোযোগ সহকারে পড়ে হালাল উপার্জনের উপকারিতা গুলো জেনে নিন। নিম্নে হালাল উপার্জনের উপকারী কিছু দিক সংক্ষেপে তুলে ধরা হলোঃ
  • হালাল উপার্জনকারী ব্যক্তির ইবাদত আল্লাহর দরবারে কবুল হয়
বান্দার ইবাদত প্রভুর দরবারে কবুল হওয়ার জন্য হালাল উপার্জন আদর্শ কেননা অবৈধ উপায়ে যেই রিজিকের ব্যবস্থা করা হয় ,সেই রিজিক গ্রহণকারী ব্যক্তির ইবাদত আল্লাহর দরবারে কখনো কবুল হয় না। এটা স্বয়ং আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের ঘোষণা। কোরআনে কারীমের মধ্যে আল্লাহ তাআলা বলেন
يا ايها الناس كلوا من الطيبات واعملوا صالحا
হে লোক সকল! তোমরা উত্তম খাবার গ্রহণ করো এবং নেক আমল করো।
  • আল্লাহর ইবাদতের প্রতি আগ্রহ জন্মে
অনেক সময় দেখা যায় যে, আমরা অনেকে বড় বড় অনেক ধর্মীয় স্কলারদের বক্তব্য শুনে থাকি আমলের দিক থেকে নিজের উন্নতি করার জন্য, কিন্তু এসব বক্তব্য শোনার পরেও নিজের ভিতর তেমন কোন পরিবর্তন পরিলক্ষিত হয় না, অথচ এসব বড় বড় স্কলাররা আমাদেরকে প্রতিনিয়তই ইবাদত করার জন্য যথেষ্ট উৎসাহ দিয়ে থাকে এবং এবাদতের বিভিন্ন ফজিলত ও বর্ণনা করে থাকেন, তবুও এবাদতের প্রতি আমাদের মনের আগ্রহ জন্মায় না এর অন্যতম কারণ হলো হারাম উপায়ে উপার্জিত রিজিক ভক্ষণ করা।
  • হালাল উপার্জন সমাজকে উন্নতির দিকে নিয়ে যায়
সামাজিক উন্নতির জন্য হালাল উপায়ে উপার্জনের বিকল্প নেই। কোন সমাজ বা রাষ্ট্রের প্রতিটি মানুষ যখন হারাম তথা অবৈধ উপার্জন পরিহার করবে এবং হালাল উপার্জনের দিকে মনোনিবেশ করবে তখন সেই সমাজ বা রাষ্ট্রের উন্নতি সময়ের ব্যাপার মাত্র। যার প্রমাণ আমরা সাহাবায়ে কেরামের যুগের দিকে তাকালে দেখতে পাই। তাদের উপার্জন হয়তো কম ছিল কিন্তু তাদের সকলের মনের মধ্যে ছিল পরম প্রশান্তি।
আল্লাহ তাআলা আমাদেরকে হালাল পন্থায় উপার্জন করে জীবিকা নির্বাহের তৌফিক দান করুন।

হালাল উপার্জন ইবাদত ও দোয়া কবুলের পূর্ব শর্ত

হালাল উপার্জন ইবাদত ও দোয়া কবুলের পূর্ব শর্ত। কারন হারাম ভক্ষণকারী কোন ব্যক্তির ইবাদত আল্লাহর দরবারে কখনোই কবুল হবে না। আল্লাহর দরবারে নিজের নামাজ, রোজা, হজ্ব ও যাকাত ইত্যাদি যেকোনো ধরনের এবাদত কবুল করাতে হলে হালাল উপার্জনের বিকল্প নেই। তাই হালাল উপার্জন ইবাদত ও দোয়া কবুলের পূর্ব শর্ত।
কুরআনে কারীমের মধ্যে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন বলেনঃ
  • يا ايها الناس كلوا من الطيبات واعملوا صالحا
হে লোক সকল! পবিত্র বস্তু হতে আহার করো এবং সৎকর্মশীল হও
রাসুল সাঃ বলেনঃ
  • لايدخل الجنة لحم نبت من السحت وكل لحم نبت من السحت كانت النار أولى
যে দেহের গোস্ত হারাম মালে গঠিত তা জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। হারাম মালের গঠিত দেহের জন্য জাহান্নামই সমীচীন।

হালাল উপার্জন সম্পর্কে বিশ্বনবী যা বলেছেন

হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব নিয়ে আলোচনায় আমরা এখন হালাল উপার্জন সম্পর্কে বিশ্বনবী যা বলেছেন সে সম্পর্কে জানব। হালাল উপার্জন সম্পর্কে বিশ্বনবী যা বলেছেন এ সম্পর্কে জানতে হলে অবশ্যই সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়তে হবে। আর সম্পূর্ণ পোস্টটি করার মাধ্যমে জেনে নিন হালাল উপার্জন সম্পর্কে বিশ্বনবী যা বলেছেন।
لايدخل الجنة لحم نبت من السحت وكل لحم نبت من السحت كانت النار أولى
অর্থাৎঃযে দেহের গোস্ত হারাম মালে গঠিত তা জান্নাতে প্রবেশ করতে পারবে না। হারাম মালের দ্বারা গঠিত দেহের জন্য জাহান্নামই সমীচীন।

শেষ কথা

হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই আলোচনায় আমরা চেষ্টা করেছি হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার। আপনি যদি একজন মুসলমান হিসেবে হালাল উপার্জন করে জীবন জীবিকা নির্বাহ করতে চান তাহলে অবশ্যই হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই বিষয়টি জানতে হবে। 
হালাল উপার্জনের উপায় ও হালাল উপার্জনে ইসলামে গুরুত্ব এই গুরুত্বপূর্ণ পোস্টটি যদি আপনার উপকারে আসে তাহলে অবশ্যই প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করে তাদের উপকৃত করুন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪