হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন এবং হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায়

শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের সবচাইতে বড় একটি প্রক্রিয়া হল ঘাম। কিন্তু এই ঘাম যদি অতিরিক্ত হয় তাহলে সেটা বিরক্তের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যাদের হাতের তালু অতিরিক্ত ঘেমে কাজের বিঘ্ন ঘটায় তাদের জন্য আমাদের হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন এবং হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় আজকের এই আর্টিকেলটি। 
আপনার অথবা আপনার পরিবারের কোনো সদস্যের যদি হাতের তালু অথবা পায়ের তালু অতিরিক্ত ঘামে তাহলে হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন এবং হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন

পরীক্ষা দিতে গিয়ে অনেক শিক্ষার্থীর দেখা যায় হাত ঘেমে পরীক্ষার খাতা ভিজে যায় আবার অনেকে হ্যান্ডশেক করতে গিয়ে ইতস্ত বোধ করে কারণ তার হাত ভেজা। এই অতিরিক্ত ও অপ্রয়োজনীয় হাত ঘামাকে চিকিৎসার ভাষায় "হাইপার হাইড্রোসিস" বলে। আমাদের আজকের আলোচনাটি হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন এবং হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় হতে পারে আপনার জন্য অনেক উপকারী।

হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন?

প্রতিটি মানুষেরই হাত-পা, মাথা শরীর ঘামে। কিন্তু এই ঘামা অনেকের আবার অতিরিক্ত হয়ে যায় যেটা বিরক্তির কারণ। তাই কি কারনে হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে আসুন সেই কারণগুলো সম্পর্কে অবগত হই।
  • যদি কোন ব্যক্তির হৃদযন্ত্রে সমস্যা থাকে তাহলে তার হাত বা পায়ের তালু অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • থাইরয়েড এর সমস্যার কারণে ও হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • অতিরিক্ত ক্যাফেইনযুক্ত পানিও যেমন চা- কফি এবং অ্যালকোহল পান করলে এপো ক্রাইন গ্রন্থি থেকে হাত-পা অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • ডায়াবেটিসের কারণে হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • হতাশা, দুশ্চিন্তা, পারিবারিক অশান্তি এ সকল কারণেও হাতের তালু অতিরিক্ত নামতে পারে।
  • গর্ভ অবস্থায় মায়ের হাত বা পায়ের তালু অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • মহিলাদের মেনোপজ এর সময় হাতের তালু ঘামতে পারে।
  • যেকোনো ঔষধ এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার কারণে ও এরকম হতে পারে।
  • মানুষের হাতের তালুতে প্রায় এক কোটি জীবাণু থাকে যার ফলে ও হাতের তালু অনেক সময় অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • পারকিন সন্স রোগের কারণেও হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামতে পারে। পারকিন সন্স রোগ হল মস্তিষ্কে এক ধরনের রাসায়নিক পদার্থের ঘাটতির কারণে এই রোগ দেখা যায়। এ রোগের লক্ষণ হল ঘুমের মধ্যে হাত -পা ছোড়া, কথা বলা বা চিৎকার করা।
  • অনেক সময় ক্যান্সারে আক্রান্ত রোগীরও হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামতে পারে।
  • প্লাস্টিকের তৈরি মোজা বা জুতা বেশি সময় পড়ে থাকলে হাতের তালু বা পায়ের তালু অতিরিক্ত ভাঙতে পারে।

হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায়

হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামার কারণগুলো আমরা এতক্ষন জানলাম। এখন আমরা আলোচনা করব হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় সম্পর্কে। আসুন মনোযোগ সহকারে পড়ে হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় গুলো জেনে নেই।
হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামার উপরের যে কারণগুলো আমরা আলোচনা করেছি যদি আপনার এই কারণগুলোর একটি হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে হবে।
  • আর যদি এই কারণগুলো না হয় তাহলে প্রথমে যেটা করতে হবে সেটা হল ঢিলেঢালা পোশাক পড়তে হবে এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে হবে।
  • বেকিং সোডা হতে পারে অন্যতম একটা ঘরোয়া উপায় হাতের তালু বা পায়ের তালু অতিরিক্ত ঘাম থেকে রোধ করার জন্য। রাতে ঘুমের আগে হাত ও পায়ের তালুতে বেকিং সোডা মেখে রেখে দিন সকালে ঘুম থেকে উঠে ধুয়ে ফেলুন। এটি শরীরের পিএইচ এর ভারসাম্য রক্ষা করে ঘামকে কমিয়ে ফেলে।
  • চন্দনের গুরাতে আছে অ্যাাস্ট্রিজান্ট যা শরীরকে শীতল করে এবং ঘাম কমাতে সহায়তা করে।
  • অ্যাপেল সিডার ভিনেগার হতে পারে আরো একটি অন্যতম প্রাকৃতিক উপাধেয়। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে হাতে বা পায়ের তালুতে আপেল সিডার ভিনেগার মেখে নিন।
  • তৈলাক্ত, ঝাল যুক্ত এবং ফাস্ট ফুড জাতীয় খাবার পরিহার করুন।
  • ব্লাক টিতে আছে টেনিন নামক প্রাকৃতিক উপাদান যা হাত বা পায়ের তালুর ঘাম কমাতে সহায়তা করে। আর এজন্যে প্রতিদিন ১৫ থেকে ২০ মিনিট ব্লাক টি মিশ্রিত পানিতে হাত এবং পা ডুবিয়ে রাখুন।
  • সামান্য গরম পানিতে কর্পুর তেল মিশিয়ে ১৫ থেকে ২০ মিনিট হাতের তালু ভিজিয়ে রাখুন।

হাত পা ঘামার ঔষধ কি?

প্রিয় পাঠক, হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন এবং হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় এই আলোচনায় এখন আমরা জানবো হাত-পা ঘামার ঔষধ সম্পর্কে।
  • অ্যালুমিনিয়াম ক্লোরাইড হেক্সা হাইড্রেট নামক এক ধরনের মলম আছে যা দৈনিক 6 থেকে 8 ঘন্টা হাত বা পায়ে লাগিয়ে পাতলা আবরণ দিয়ে ঢেকে রাখতে হয়। তবে এই চিকিৎসা পদ্ধতি বেশ বিরক্তিকর এবং তেমন একটা ফলপ্রসু হয় না। যার কারণে এই চিকিৎসা পদ্ধতি খুব একটা জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি।
  • Endoscopic Thoracis Sympathectomy (ETS) নামক এক ধরনের মেরুদন্ডে অপারেশন, BOTOX নামক এক ধরনের ইনজেকশন এবং Iontophoresis নামক এক ধরনের থেরাপি আছে। কিন্তু এই চিকিৎসা পদ্ধতি গুলো অনেক ব্যয়বহুল এবং রিক্সও বটে। সেই সাথে ফলাফলও বেশ ফলপ্রসু হয় না। তাই এই চিকিৎসা পদ্ধতি গুলো খুব একটা জনপ্রিয় হয়ে ওঠেনি।
  • তবে ডাক্তাররা সাধারণত হাতের বা পায়ের তালু অতিরিক্ত ঘামার জন্য এক ধরনের লোশন ব্যবহার করতে বলেন যেটাকে ড্রাইকেয়ার লোশন বলে। এই লোশনটি দিনে ৩ বার হাত এবং পায়ের তালুতে লোশনের মত করে মালিশ করে ব্যবহার করতে হয়। অনেকের এই ছোট ট্রিটমেন্টেই ভালো উপকার পায়।
তবে মনে রাখবেন, হাতের বা পায়ের তালু অতিরিক্ত ঘামার জন্য নিজে নিজেই কোন ওষুধ ব্যবহার না করে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ ক্রমে চিকিৎসা নিতে হবে।

শেষ কথা

আমরা আজকে আমাদের হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামে কেন এবং হাতের তালু অতিরিক্ত ঘামা থেকে মুক্তির উপায় আর্টিকেলে এ সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি। আশা করি, এই আলোচনা থেকে আপনাদের অনেক উপকার হবে। 
আর পোস্টটি যদি ভালো লেগে থাকে অবশ্যই প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করবেন। আর এ সংক্রান্ত কোনো পরামর্শ থাকলে অবশ্যই মন্তব্য করে জানাবেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪