পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন

প্রিয় পাঠক, আজকে আমরা যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি এটি আপনাদের কাছে হয়তো বা খুবই নতুন একটা রোগ যার নাম পারকিনসন। পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন্স রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন এই আলোচনায় আমরা পারকিনসন রোগ কি? 
পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন্স রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার চেষ্টা করব। পুরো আর্টিকেলটি মনোযোগ সহকারে পড়ে পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন্স রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জেনে নিন।
পারকিনসন রোগ কি

আমাদের দেশে পারকেনসন রোগের ধারণা একেবারে নেই বললেই চলে। এই রোগটি সাধারণত বয়স্ক মানুষের বেলায় হয়ে থাকে। তবে বর্তমানে অল্প বয়স্কদের বেলায়ও এর লক্ষণ দেখা যায়। এই রোগটি মানুষের অকাল মৃত্যু ঘটাতে পারে। তবে রোগের চিহ্নিত করতে পারলে নিরাময় সম্ভব।

পারকিনসন রোগ কি?

পারকিনসন হল একপ্রকার নিউরো- ডিজেনারাটিভ বা স্নায়ুবিক রোগ। এই রোগটির একাধিক নাম রয়েছে যেমন-পারকিনসনিসোম, প্যারালাইসিস ইস এজিট্যান্স বা শেকিং পালসি। মানুষের মস্তিষ্কের ডপোমিন তৈরির কোষ ক্ষতি গ্রস্ত হলে এই রোগ হয়। মানুষের স্বাভাবিক অবস্থায় মস্তিষ্কে ব্যাজাল গাংলিয়া নামের একটি অংশ মানুষের চলাফেরা এবং গতি সমন্বয় করে থাকে ডপোমিনের অভাবে সেই সমন্বয়ের প্রক্রিয়া নষ্ট হয়ে যায়। এ অবস্থায় একজন মানুষ পারকিনসন রোগে আক্রান্ত হয়।

পারকিনসন রোগ লক্ষণ কি?

পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন্স রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন এই আর্টিকেলে পারকিনসন রোগ কি সে সম্পর্কে আমরা জানলাম। এখন আমরা জানবো পারকিনসন রোগের লক্ষণ কি সেই বিষয়গুলো। আসুন আলোচনাটি মনোযোগ সহকারে পড়ে জেনে নেই পারকিনসন রোগের লক্ষণ কি?
  • ঘুমের মধ্যে হাত পা ছোড়া কথা বলা এবং চিৎকার করা।
  • মানুষের শরীর অস্বাভাবিকভাবে দুর্বল হয়ে যাওয়া।
  • হাত -পা এবং মাথায় কাপুনি হওয়া।
  • শরীরের একপাশের হাত এবং পায়ের অবশ হয়ে যাওয়া।
  • হাঁটার ক্ষমতা কমে যাওয়া এবং পা টেনে আসা।
  • শরীরের ভারসাম্য ধরে রাখতে পারে না এবং সামনের দিকে ঝুঁকে হাঁটার চেষ্টা করা।
  • হতাশা, উদ্বেগ, বিষন্নতা, উদাসীনতা এবং ঘুম কমে যাওয়া।
  • ঘ্রাণ নেওয়ার ক্ষমতা কমে যাওয়া
  • চোখের পাতার নড়াচড়া কমে যাওয়া।
  • প্রসব করার সময় আটকে যাওয়া এবং কোষ্ঠকাঠিন্য তৈরি হওয়া।
  • স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া।

পারকিনসন কি কারনে হয়?

পারকিনসন রোগের লক্ষণগুলো আমরা এতক্ষণ জানলাম। এবার আমরা আলোচনা করব পারকিনসন কি কারনে হয় বিস্তারিত জানার জন্য পুরো পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন।
  • বংশগত কারণে এই রোগ হতে পারে। পরিবারের কোন সদস্যের থাকলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • মাঝ বয়সে এই রোগ হয় সাধারণত ৬০ বছর বা তার পর থেকে।
  • মহিলাদের তুলনায় পুরুষের এই রোগ বেশি হয়।
  • বিষাক্ত পদার্থের সংস্পর্শ যেমন- আগাছানাশক, কীটনাশক ইত্যাদির সংস্পর্শ থাকলে এই রোগ হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

পারকিনসন রোগের চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন

পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন্স রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন এই আর্টিকেলে এখন আমরা আলোচনা করব পারকেনশন রোগের চিকিৎসা সম্পর্কে। পারকিনসন রোগের ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী নিয়মিত ঔষধ খেলে তা নিয়ন্ত্রণে রেখে স্বাভাবিক জীবন যাপন করা সম্ভব তবে এই রোগ থেকে একেবারে নিরাময় সম্ভব নয়। 
যেহেতু এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে সারা জীবন ওষুধের উপর নির্ভরশীল হতে হবে তাই এর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়াও রয়ে যায়। সেজন্য রোগীকে কিছু নিয়মিত যোগ ব্যায়াম করতে হবে। এখানে কিছু যোগব্যায়ামের উল্লেখ করা হলো
  • মেডিটেশন হতে পারে একটি অন্যতম ব্যায়াম। এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে প্রতিদিন নিয়ম করে মেডিটেশন করলে বেশ ভালো ফল পাওয়া যেতে পারে।
  • নিয়মিত হাটা বা হালকা ব্যয়াম হতে পারে আরো একটি অন্যতম উপায়। হাটা বা হালকা ব্যায়াম করার ফলে শরীরের রক্ত চলাচল স্বাভাবিক থাকে এবং মস্তিষ্কের উপরে চাপ কম পড়ে। তাই এ রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিকে নিয়মিত হাটা বা হালকা ব্যায়াম করা উচিত।
  • থেরাপি হতে পারে আরো একটি অন্যতম উপায়। শরীরের বিভিন্ন অংশে থেরাপির মাধ্যমে শরীরের স্নায়ুবিক কার্যক্রম বৃদ্ধি পায়। তাই নিয়ম করে সপ্তাহে অন্তত তিন থেকে চার দিন শরীরের বিভিন্ন অংশে থেরাপি দেওয়া যেতে পারে।
  • লাইফ স্টাইল পরিবর্তন অথবা সুশৃংখল জীবন যাপন হতে পারে আরো একটি অন্যতম উপায়। তাই নিয়মিত ঘুম, নিয়মিত খাওয়া থেকে শুরু করে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে সুশৃংখল আনা এ রোগের সুস্থতার অন্যতম আরো একটি উপায়।

শেষ কথা

প্রিয় পাঠক,পারকিনসন রোগ কি? পারকিনসন্স রোগের লক্ষণ ও চিকিৎসা সম্পর্কে জানুন আজকের এই আলোচনায় আমরা চেষ্টা করেছি পারকিনসন রোগ সম্পর্কে বিস্তারিত জানানোর। আশা করি, আজকের এই আলোচনাটি পারকিনসন রোগ সম্পর্কে অনেকগুলো ধারণা পেয়েছেন। 
আপনার পরিবারের কোন ব্যক্তি যদি এ রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে তাহলে অবশ্যই এই আলোচনাটি আপনার অনেক উপকারে আসবে। এই পোস্টটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে অথবা আপনার উপকারে আসে অবশ্যই প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করবেন। আর যে কোন প্রয়োজনে আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪