টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায়

জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রেই আমরা নানা রকমের সমস্যা বা চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন হই। আর এই সমস্যা থেকেই তৈরি হয় টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন। তাই আজকে আমরা টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায় সম্পর্কে আলোচনা করব। সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ার মাধ্যমে আপনি অবশ্যই টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায় খুঁজে পাবেন।
টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায়

ইসলামিক আলোচকরা বলেন মানুষকে পথভ্রষ্ট করার শয়তানের প্রথম হাতিয়ার হল টেনশন। শয়তান মানুষের মধ্যে হতাশা ঢুকিয়ে দেয় এবং পাপ কাজ করতে উদ্বুদ্ধ করে। 
তাই আমাদেরকে টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্ত থাকতে হবে। 

টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায় 

  • পর্যাপ্ত ঘুম
ঘুম আমাদের মানসিক এবং শারীরিক স্বাস্থ্যের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। প্রতিরাতে ৭ থেকে ৮ ঘন্টা ঘুমের চেষ্টা করতে হবে।
  • স্বাস্থ্যকর খাবার
স্বাস্থ্যকর খাবার আমাদের শরীরকে শক্তি দেয় এবং আমাদের মনকে ভালো রাখে। ফলে শাক-সবজি, মাছ মাংস এবং ফলমূল খেতে হবে।
  • নিয়মিত ব্যায়াম
নিয়মিত ব্যায়াম আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখে এবং আমাদের মন কেও ভালো রাখে। প্রতিদিন সময় করে অন্তত 30 মিনিট ব্যায়াম করার চেষ্টা করতে হবে।
  • ধ্যান এবং যোগব্যায়াম
ধ্যান এবং যোগব্যায়াম আমাদের মানসিক চাপ এবং উদ্যোগ কমাতে সাহায্য করে। প্রতিদিন অন্তত ১০ থেকে ১৫ মিনিট ধ্যান বা যোগব্যায়াম করার চেষ্টা করুন।
  • পরিবারকে সময় দিন
পরিবার বা প্রিয়জনদের সাথে সময় কাটানো আমাদের মনকে ভালো রাখতে সাহায্য করে এবং আমাদের মানসিক চাপ কমাতে সহায়তা করে। বন্ধুবান্ধব পরিবার এবং সঙ্গের সাথে নিয়মিত সময় কাটান।
  • পছন্দের কাজগুলো করুন
যে কাজগুলো করলে আপনার ভালো লাগে বা মন ভালো থাকে যেমন বই পড়া গান শোনা ছবি আঁকা বা গান গাওয়া এই কাজগুলো করুন।
  • মানসিক স্বাস্থ্যের যত্ন নিন
আপনি যদি দীর্ঘস্থায়ী টেনশন, হতাশা বা ডিপ্রেশন অনুভব করেন তবে একজন মানসিক স্বাস্থ্য ডাক্তারের সাথে কথা বলুন। তিনি আপনাকে আপনার মানসিক স্বাস্থ্যের সমস্যাগুলো সমাধান করতে সাহায্য করবে।

ইসলামের আলোকে টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায়

আমাদের প্রিয় নবী হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) টেনশন টেনশন হতাশা এবং ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির জন্য বেশ কিছু আমল শিখিয়ে দিয়েছেন। আমলগুলো নিয়মিত পাঠ করলে অবশ্যই টেনশন হতাশা ডিপ্রেশন থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে।
  • এ প্রসঙ্গে নবী করীম (সাঃ) বলেন এমন একটি দোয়া যা পাঠ করলে যে কোন রকমের বিপদ-আপদ এবং টেনশন থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে-
لَا إِلَهَ إِلَّا أَنْتَ سُبْحَانَكَ، إِنِّي كُنْتُ مِنَ الظَّالِمِينَ
উচ্চারণঃ "লা ইলাহা ইল্লা আনতা সুবহানাকা ইন্নি কুনতু মিনাজ জোয়ালিমীন"
অর্থঃ হে আল্লাহ! আপনি ছাড়া সত্য কোন ইলাহ নেই আমি আপনার পবিত্রতা বর্ণনা করছি। নিঃসন্দেহে আমি নিজের প্রতি অবিচার করেছি। (তিরমিজি হাদিস নং ৩৫০৫)
  • নবী করীম (সাঃ) দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হলে নিচের এই দোয়াটি পাঠ করতেন-
اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنَ الهَمِّ وَالحَزَنِ، وَالعَجزِ وَالكَسَلِ، وَالبُخلِ وَالجُبنِ، وَضَلَعِ الدَّينِ وَقَهْرِالرِّجَالِ
উচ্চারণঃ আল্লাহুম্মা ইন্নি আউযু বিকা মিনাল হাম্মি ওয়াল হুজনি, ওয়া আউযুবিকা মিনাল আজজি ওয়াল-কাসালি, ওয়া আউযু বিকা মিনাল বুখলি ওয়ান জুবনি, ওয়া আউযুবিকা মিন গালাবাতিদ দাইনি ওয়া কাহরির রিজাল।
অর্থঃ হে আল্লাহ! নিশ্চয়ই আমি দুশ্চিন্তা ও দুঃখ থেকে, অপারগতা ও অলসতা থেকে, কৃপণতা ও ভীরুতা থেকে, ঋণের ভার ও মানুষদের দমন পিরন থেকে আপনার আশ্রয় নিচ্ছি।
ইস্তেগফার পাঠ মানুষকে সব রকম বিপদ আপদ টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্ত রাখে তাই আমাদের নিয়মিত ইস্তেগফার পাঠ করা উচিত।

কিভাবে ইস্তেগফার পাঠ করবেন সে সম্পর্কে নিচে আলোচনা করা হলো

  • 'আস্তাগফিরুল্লাহ' 
অর্থাৎ, আমি আল্লাহর ক্ষম প্রার্থনা করছি। প্রতি ওয়াক্ত ফরজ নামাজের শেষে ৩ বার এই ইস্তেগফারটি পাঠ করবেন।
  • 'আস্তাগফিরুল্লাহা ওয়াতুবি ইলাইহি' 
অর্থাৎ, আমি আল্লাহর ক্ষমাপ্রার্থনা করছি এবং তার কাছ থেকে ফিরে আসছি। এই ইস্তেগফারটি প্রতিদিন ৭০থেকে ১০০ বার পড়বেন।
  • 'রাব্বিগফিরলি, ওয়াতুব আলাই, ইন্নাকা আন্তাত তাউয়্যুবুর রাহিম'
অর্থাৎ হে প্রভু আপনি আমাকে ক্ষমা করুন এবং আমার তওবা কবুল করুন নিশ্চয়ই আপনি মহান তওবা কবুলকারী করুনাময় এই দোয়াটি মসজিদে বসে প্রতিদিন ১০০ বার পাঠ করবেন।
  • 'আস্তাগফিরুল্লাহল্লাজি লা ইলাহা ইল্লা হুয়াল হাইয়ুল কাইয়ুম ওয়াতুবী ইলাইহি' 
অর্থাৎ, আমি ওই আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাই, যিনি ছাড়া প্রকৃতপক্ষে কোন মাবুদ নেই, তিনি চিরঞ্জীব, চিরস্থায়ী এবং তার কাছেই ফিরে আসি।

সাইয়েদুল ইস্তেগফার

  • 'আল্লাহুম্মা আংতা রাব্বিলা ইলাহা ইল্লা আনতা খালাক্তানি ওয়া আনা আলা আহদিকা ওয়া ওয়াদিকা মাস তাতাতু আউযুবিকা মিন শাররি মা সনাতো আবুউলাকা বিনিমাতিকা আলাইয়া ওয়া আবুউলাকা বিজাম্বি ফাগফিরলি ফা- ইন্নাহু লা ইয়াগ ফিরুজ জুনুবা ইল্লা আংতা'।
অর্থাৎ, হে আল্লাহ! তুমি আমার প্রতিপালক। তুমি ছাড়া কোন ইলাহ নেই। তুমি আমাকে সৃষ্টি করেছ। আমি তোমারই বান্দা। আমি যথাসাধ্য তোমার সঙ্গে প্রতিজ্ঞা ও অঙ্গীকারি আবদ্ধ। আমি আমার সব কৃতকর্মের কুফল থেকে তোমার কাছে আশ্রয় চাই। 
তুমি আমার প্রতি তোমার যে নেয়ামত দিয়েছো তা স্বীকার করছি। আর আমার কৃতজ্ঞের কথা ও স্বীকার করছি। তুমি আমাকে ক্ষমা করে দাও। কারণ তুমি ছাড়া কেউ গুনাহ ক্ষমা করতে পারবে না।

লেখকের কথা

প্রিয় পাঠক,টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায় এই টাইটেলে আমরা টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায় সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেছি আপনি যদি পুরো আর্টিকেলটি পড়ে থাকেন তাহলে আশা করি টেনশন, হতাশা, ডিপ্রেশন থেকে মুক্তির উপায় আর্টিকেলটি আপনার অনেক উপকারে আসবে। আলোচনাটি যদি আপনার ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই প্রিয়জনদের সাথে শেয়ার করবেন।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

সার্চিং লিংক প্রোর নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ১

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ২

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৩

এইটা একটি বিজ্ঞাপন এরিয়া। সিরিয়ালঃ ৪